বিনোদোন ডেস্কঃ  বলিউডের খ্যাতিমান নাদিম-শ্রাবণ সংগীত পরিচালক জুটির শ্রাবণ রাঠোর আর নেই। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, করোনা আক্রান্ত হয়ে বেশ কয়েকদিন ধরে মাহিমের এসএল রাহেজা হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন শ্রাবণ রাঠোর।
করোনা তার ফুসফুসে ছড়িয়ে পড়ায় শারীরিক অবস্থার ক্রমেই অবনতি হতে থাকে এবং বৃহস্পতিবার তিনি সেখানেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তার বয়স হয়েছিল ৬৬ বছর। তার এই মৃত্যুতে বলিউডসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সংগীতপ্রেমীদের মধ্যে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। শোক প্রকাশ করেছেন বলিউডের অনেক তারকা, নির্মাতা, শিল্পী ও সহকর্মী।

সত্তর দশকে ভোজপুরি ছবির মাধ্যমে সংগীত পরিচালক হিসেবে জুটি বেঁধে সফর শুরু করেছিলেন নাদিম সাইফি ও শ্রাবণ রাঠোর। যারা পরিচিতি পান নাদিম-শ্রাবণ হিসেবে। যদিও তাদের ক্যারিয়ার শুরুর পর এক যুগ অপেক্ষা করতে হয়েছে সাফল্য পেতে।

তবে নব্বই দশকে মিউজিক্যাল ব্লকবাস্টার ছবি ‘আশিকি’র মাধ্যমে প্রথম সাফল্য পাওয়ার পর আর পিছু ফিরে তাকাতে হয়নি। এই ছবির জন্যই সংগীত পরিচালক হিসেবে প্রথম ফিল্মফেয়ার পুরস্কার পেয়েছিল নাদিম-শ্রাবণ জুটি।
তারপর একে একে ‘সাজন’, ‘ফুল আউর কাঁটে’, ‘দিওয়ানা’, ‘হাম হ্যায় রাহি প্যায়ার কে’, ‘রাজা’, ‘রাজা হিন্দুস্তানি’, ‘পরদেশ’, ‘ধড়কান’, ‘রাজ’সহ অনেক ছবিতে তারা জুটি বেঁধে কাজ করেছেন। তাদের সৃষ্টি করা অসংখ্য গান আজও শ্রোতার মধ্যে সমান জনপ্রিয়। বিশেষ করে নব্বই দশকে তারা যেসব ছবিতে কাজ করেছেন, তার বেশিরভাগ ছবির গানই ছিল বলিউড টপচার্টের শীর্ষে।
অডিও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান টি-সিরিজের কর্ণধার গুলশান কুমার হত্যাকাণ্ডের পর পুলিশের সন্দেহ তালিকায় নাম উঠে আসে নাদিম-শ্রাবণ জুটির নাদিম সাইফির। যার পরিপ্রেক্ষিতে দেশের বাইরে পাড়ি জমান নাদিম। তখনই ভাঙে তাদের জুটি।
যদিও দেশের বাইরে থেকেই বিভিন্ন সময়ে নাদিম বেশ কিছু গানের সুর করে শ্রাবণের কাছে পাঠালেও তাদের কাজের ধারাবাহিকতা ধরে রাখা সম্ভব হয়নি। শ্রাবণের দুই ভাই রূপ কুমার রাঠোর ও বিনোদ রাঠোর বলিউডের জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী এবং ছেলে সঞ্জীব আলোচিত সংগীতায়োজক।