এলিটার ভাগ্য এখন ঝুলে আছে এনআইডি কার্ডে

প্রকাশিত: 9:53 AM, April 20, 2021

এলিটার ভাগ্য এখন ঝুলে আছে এনআইডি কার্ডে

স্পোর্টস ডেস্কঃ  এলিটা কিংসলে। নাইজেরিয়ায় জন্ম হলেও নিজ ফুটবল ক্যারিয়ারের বড় একটা সময় পাড় করছেন বাংলাদেশের ফুটবলে। ২০১১ সাল থেকে ঢাকার ফুটবলে নিয়মিত মুখ কিংসলে। খেলেছেন আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্র, টিম বিজেএমসি ও চট্টগ্রাম আবাহনী লিমিটেডে।

২০১২ সালের ২০ মে বিয়ে করেছেন বাংলাদেশের মেয়ে লিজাকে। এই দম্পতির আছে সাত বছরের একটি মেয়ে। নাম সামিরা। বৈবাহিক সূত্রে এলিটা কিংসলে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব পেতে আবেদন করেন ২০১৬ সালে। দীর্ঘ অপেক্ষার পর গত মাসের মাঝামাঝিতে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব পান এই নাইজেরিয়ান ফুটবলার। কিন্তু তার ভাগ্য ঝুলে আছে জাতীয় পরিচয়পত্র না হওয়ায়!

বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সনদপত্র পাওয়ার পর এলিটা এবারের বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) দ্বিতীয় পর্বে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংসের পক্ষে দলবদলের সিদ্ধান্ত নেন। স্থানীয় খেলোয়াড় হিসেবে তার নাম নিবন্ধনের জন্য বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনে (বাফুফে) আবেদনও করেছে বসুন্ধরা কিংস। কিন্তু জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকায় এলিটার নিবন্ধন ঝুলে আছে। বাংলাদেশের নাগরিকত্ব পাওয়ার পরপরই জাতীয় পরিচয়পত্রের জন্য এলিটা নির্বাচন কমিশনে আবেদন করেছেন। কিন্তু জাতীয় পরিচয়পত্র পাননি এখনো।

বিপিএলের মধ্যবর্তী দলবদলের সময় শেষ হয়েছে গত ১৭ এপ্রিল। বসুন্ধরা কিংস নাম দিয়েছে এলিটা কিংসলের। কিন্তু খেলোয়াড় নিবন্ধনের জন্য বাধ্যতামূলক এলিটার জন্মনিবন্ধন সনদ, জাতীয় পরিচয়পত্র কিংবা পাসপোর্ট এর কোনটাই দিতে পারেনি বসুন্ধরা কিংস। যে কারণে ক্লাবটি বাফুফের প্লেয়ার্স স্ট্যাটাস কমিটির কাছে আবেদনও করেছে কিংসলের নিবন্ধনের জন্য।

সাবেক সচিব আখতার হোসেন খানের নেতৃত্বাধীন প্লেয়ার্স স্ট্যাটাস কমিটির কাছে কিংসলে ইস্যুটি ২/৩ দিনের মধ্যেই পাঠাবে বাফুফে। কিংসলে বিপিএলের জন্য নিবন্ধিত হতে পারবেন কিনা, পারলেও কি কি শর্তে- সবকিছু এখন নির্ভর করছে প্লেয়ার্স স্ট্যাটাস কমিটির সিদ্ধান্তের ওপর।

নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে প্রয়োজনীয় প্রমাণাদিসহ নিবন্ধনের জন্য আবেদন করতে পারেনি বসুন্ধরা কিংস। কিংসলের নিবন্ধনের আবেদন বাতিল হলে এ মৌসুমে আর ঘরোয়া ফুটবলে খেলা হবে না ‘নতুন বাংলাদেশি’ এলিটা কিংসলের। তার এএফসি কাপ খেলার সম্ভাবনা আগেই শেষ হয়েছে। তাকে ছাড়াই বসুন্ধরা কিংস নিজেদের খেলোয়াড় তালিকা পাঠিয়েছে এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশনে (এএফসি)।