সমস্যার সূত্রপাত হয় ফাস্টলির দিক থেকে। ক্লাউড কম্পিউটিং সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানটি নিজ সেবাগ্রহীতা ওয়েবসাইটগুলোকে দ্রুত লোড হওয়ার সেবা দিয়ে থাকে। পাশাপাশি ট্রাফিকের চাপ বেশি থাকলে ‘ডিনায়াল-অফ-সার্ভিস’ বা ডিডিওএসের হাত থেকেও সুরক্ষিত রাখে সাইটকে।

এরই মধ্যে বিভ্রাটের জন্য ক্ষমা চেয়েছে ফাস্টলি। প্রতিষ্ঠানটি বলছে, এমনটা যে হতে পারে তা তাদের আগেই অনুমান করা উচিত ছিল। গোটা বিভ্রাটের দায় ফাস্টলি চাপিয়েছে সফটওয়্যার বাগের ঘাড়ে। তাদের ভাষ্য অনুসারে, মে মাসের মধ্যবর্তী সময় থেকে সফটওয়্যারে বাগ ছিল, পরে একজন গ্রাহক সেটিংস পরিবর্তন করে ফেললে সমস্যা শুরু হয়।

ফাস্টলি বলছে, সমস্যা শুরু হওয়ার ৪০ মিনিটের মধ্যেই সেটির সমাধান করেছেন প্রকৌশলীরা। ’৪৯ মিনিটের মাথায় আমাদের নেটওয়ার্ক স্বাভাবিক অবস্থায় ফেরত আসে।’ – জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।