আজান ও কোরআন নিয়ে বিস্ময়কর তথ্য

প্রকাশিত: 5:30 AM, November 11, 2021

আজান ও কোরআন নিয়ে বিস্ময়কর তথ্য

ধর্ম ডেস্কঃ যুগে যুগে বিখ্যাত মনীষীগণ ইসলামের খেদমত করতে গিয়ে পবিত্র কোরআন অধ্যয়ন ও গবেষণা করে নতুন নতুন তথ্য উদ্ঘাটন করে মানুষের নিকট পৌঁছে দিয়ে ইসলামের মাহাত্ম্য ও সৌন্দর্য তুলে ধরেছেন। এমনকি অমুসলিম বিজ্ঞানীরাও আজ এমন অনেক তথ্য আমাদের কাছে প্রকাশ করছেন, যা কোরআনকেন্দ্রিক গবেষণা। বিভিন্ন সোর্স থেকে নেওয়া কোরআন ও আজানের বিস্ময়কর তথ্য নিম্নে আলোচিত হলো—

আজানের অজানা পাঁচটি তথ্য: ১. আজানের ১ম শব্দ হলো ‘আল্লাহ’ এবং শেষ শব্দও হলো ‘আল্লাহ’। এর মানে আল্লাহই শুরু এবং আল্লাহই শেষ। ২. আজান শব্দটি পবিত্র কোরআনে সর্বমোট রয়েছে পাঁচ বার। আর আমারা প্রতিদিন পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করি। ৩. আজানের মধ্যে সর্বমোট শব্দ হলো ৫০টি। আর আল্লাহ মিরাজের সময় হজরত মুহাম্মদ (স.)-কে সর্বপ্রথম ৫০ ওয়াক্ত ফরজ নামাজ দিয়েছিলেন। পরে তা কমিয়ে পাঁচ ওয়াক্ত করা হয়। আর সহিহ হাদিসে এসেছে একজন ব্যক্তি পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করলে আল্লাহ তাকে ৫০ ওয়াক্তের সাওয়াব দেবেন।

৪. আজানের মধ্যে সর্বমোট ১৭টি ভিন্ন অক্ষর রয়েছে। আর আমাদের প্রতিদিন ফরজ নামাজ হলো ১৭ রাকাত। (ফজর ২ + জোহর ৪ + আসর ৪ + মাগরিব ৩ + এশা ৪) মোট = ১৭ রাকাত। ৫. আজানের মধ্যে সবচেয়ে ব্যবহৃত শব্দ হলো ‘আল্লাহ’। আল্লাহ শব্দের ‘আলিফ’ অক্ষরটি সম্পূর্ণ আজানে আছে মোট ৪৭ বার, ‘লাম’ অক্ষরটি ৪৫ বার এবং ‘হা’ অক্ষরটি ২০ বার। সুতরাং, (৪৭ + ৪৫ + ২০) মোট = ১১২। আর পবিত্র কুরআনের ১১২ নম্বর সুরা হলো সুরা ইখলাস। যে সুরায় আল্লাহ নিজের পরিচয় দিয়েছেন।

মহাগ্রন্থ আল-কোরআনের অজানা কিছু তথ্য: শাস্তি শব্দটি আছে মোট ১১৭ বার। ক্ষমা শব্দটি আছে মোট ২৩৪ বার। (১১৭ – ২) = ২৩৪ বার। ব্যাখ্যা: এটার দ্বারা বোঝা যাচ্ছে যে, আল্লাহ শাস্তির চেয়ে দ্বিগুণ ক্ষমা করে থাকেন ইত্যাদি। আল্লাহ বললেন/তিনি বললেন শব্দটি আছে—৩৩২ বার। তারা বলল শব্দটি আছে—৩৩২ বার। (৩৩২ = ৩৩২) বার। ব্যাখ্যা: আল্লাহ যতবার বলেছেন ততবার তার উত্তর এসেছে। এদিকে নারী বা মহিলা শব্দটি আছে ২৩ বার। পুরুষ শব্দটিও আছে ২৩ (নারী = পুরুষ)। ব্যাখ্যা: এটা দ্বারা বোঝা যায় আল্লাহ তা’য়ালার নিকট নারী-পুরুষ সমান। এছাড়াও একটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হলো উভয়ের যোগফল (২৩ + ২৩ = ৪৬) হয় ৪৬। আমরা জানি, একটি শিশু জন্মগ্রহণ করেন ৪৬টি ক্রোমোজোম নিয়ে, যার ২৩টি আসে পিতা থেকে আর ২৩টি আসে মাতা থেকে। কোরআন শরিফে স্থল শব্দটি এসেছে ১৩ বার। সাগর শব্দটি ৩২ বার।